বাউত উৎসব

শত শত নদী আর অসংখ্য খাল বিল নিয়ে গঠিত সবুজ শ্যামল এই দেশে মাছ ধরার রয়েছে বহু পদ্ধতি এবং উৎসব। এর মধ্যে অন্যতম হলো বাউত উৎসব যা মূলত পলো দিয়ে মাছ ধরার উৎসব নামে পরিচিত। এটি একটি ঐতিহ্যবাহী উৎসব হিসেবে বহুকাল ধরে এদেশে চলে আসছে এবং একটি নির্দিষ্ট সময়ে মহাসমারোহে এই উৎসব চলে। মূলত বর্ষা মৌসুম শেষে জল যখন কমতে থাকে তখন কোনো এক সময় পলো হাতে নেমে যান মৎস শিকারীরা। এখানে অংশ নেই দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে আসা শত শত সৌখিন মৎস শিকারী। তারা পলো (মাছ ধরার জন্য বাঁশের তৈরি বিশেষ ফাঁদ) নিয়ে অল্প জলে নেমে পরে। পলো হাতে বাউত উৎসবে মাতে তারা। সিরাজগঞ্জের শাহাজাদপুরের করোতোয়া নদীতে এবং পাবনা ও পার্শ্ববর্তী নাটোর,বগুড়া,টাঙ্গাইলের বিভিন্ন এলাকা থেকে আসে ডিকশির বিলে বাউত উৎসবে অংশ নিতে। যদিও এখন আর আগের মতো মাছ ধরা পরে না। তবু সৌখিন মৎস শিকারীদের বিরাম নেই। বিলের পানিতে সাধারণত বোয়াল,রুই,গজার,ফলি কাতলা,শোল ইত্যাদি মাছ ধরা পরে। এই বাউতদের চলাচলে বিলের জল ঘোলা হয়ে ওঠে। তখন মাছ ভেসে ওঠে। পাবনা-সিরাজগঞ্জে একটি পুরোনো ঐতিহ্য বাউত। মাছ পাওয়া যাক আর নাই যাক ক্ষতি নেই। পলো বা বাউত নিয়ে নেমে পরলেই হলো। দিনশেষে মুখ ভর্তি যে আনন্দ থাকে তাই গ্রাম বাংলার চিরায়ত ঐতিহ্য।

কবি অলোক আচার্য

সকল পোস্ট : অলোক আচার্য