বিজয়ের ৫০ : দুঃখ সুখের বাংলাদেশ।। নীলকণ্ঠ জয়

আজ মহান বিজয় দিবস। সাড়ম্বরে পালিত হচ্ছে বিজয়ের সুবর্ণজয়ন্তী। পাওয়া না পাওয়া, দুঃখ সুখে কেটে গেল পঞ্চাশটি বছর। উত্থান আর পতন, আবার মাথা উঁচু করে দাঁড়িয়ে সগৌরবে নিজেকে জানান দিয়েছে অনেক বিসর্জন দিয়ে পাওয়া প্রিয় মাতৃভূমি।

আজ আমরা বলতেই পারি আমরা স্বয়ংসম্পূর্ণ একটি দেশ। নিম্ন আয়ের দেশ থেকে আমরা এখন মধ্যম আয়ের দেশে উন্নিত হয়েছি। নিজের টাকায় এখন পদ্মাসেতু নির্মাণ করার সাহস করি। আমাদের কলিজাটা এখন অনেক বড়। তাইতো একে একে রূপপুর মেগা প্রকল্প, পদ্মা সেতু, মেরিন ড্রাইভ, পায়রা বন্দর, কর্ণফুলী টানেল, মেট্রোরেলের মতো বিরাট বাজেটের কাজগুলো অনায়াসেই শেষ করার সাহস করতে পারি। আমাদের সিনার মাংসে এখন আর পচন ধরার ভয় নেই, আমরা বিশ্বমানচিত্রে অনন্য এক নাম। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী বছর শেষে জাতিসংঘে সেরাদের কাতারে বসে দেশ নিয়ে নিজের স্বপ্নের কথা বলতে পারেন মাথা উঁচু করে।

আমাদের শিল্পখাতে অভূতপূর্ব অর্জন এখন অনেক দেশেরই মাথাব্যথার কারণ। জাহাজ শিল্পের মতো বৃহৎ শিল্পে সাফল্য আসার পর এখন আমরা কার্গো শিল্পে হাত দিয়েছি। আমাদের পোশাক বিশ্বনন্দিত, আমাদের কুটির শিল্প জগৎখ্যাত। আমাদের সৈনিকেরা সারা বিশ্বজুড়ে সুনাম বয়ে আনছে। আমাদের রপ্তানিযোগ্য পণ্যের সংখ্যা বাড়ছে প্রতি বছর। অর্থনৈতিক মেরুদণ্ড এখন আর বাঁকা নেই আমাদের। দেশের গণ্ডি পেরিয়ে বহির্বিশ্বে আমাদের ইনভেস্টমেন্ট বাড়ছে, বাড়ছে নিজদেশে বিদেশী বিনিয়োগ। টাটা, নিটোল গ্রুপ, সুজুকি, ইয়ামাহা এখন আমাদের দেশেই বিনিয়োগ করে।

মৌলিক চাহিদার সকল পর্যায়ে স্বয়ংসম্পূর্ণতা ৫০ বছরে আমাদের সর্বোচ্চ অর্জন। আজকের বাংলাদেশ বিশ্বের রোল মডেল বলে পরিচিতি পায় এখন। বিশ্বের পিছিয়ে পড়া দেশগুলো এখন নির্দ্বিধায় স্বীকার করে এবং অনুসরণ করে বাংলাদেশকে। ‘লুক ফরওয়ার্ড লাইক বাংলাদেশ’ এখন খুব জনপ্রিয় উক্তি। আর এজন্যই বোধকরি আমাদের প্রধানমন্ত্রী এখন সেরাদের সেরা।

এতো অর্জনের পরেও আমাদের আক্ষেপের যায়গা এখনো কম নয়। যে মূলনীতির উপর ভিত্তি করে এই দেশের জন্ম, সেখানে আঘাত আসে বারবার। আমাদের দেশের সংখ্যালঘু সম্প্রদায় এখনো কথায় কথায় নির্যাতিত হয় ভূ-রাজনৈতিক কিংবা ধর্মীয় মনস্তাত্ত্বিক লড়াইয়ের বলি হয়ে। ধনী দরিদ্রের মাঝে তফাৎ এখনো দৃশ্যমান। মধ্যসত্ত্বভোগীদের কারণে এখনো বাজারে লাগুন লাগে, লাগামছাড়া হয়ে ওঠে নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসপত্রের দাম। বেকারত্ব সমস্যা সম্পূর্ণ কাটয়ে ওঠা সম্ভব হয়নি এখনো।

পাওয়া না পাওয়ার মাঝেও আমরা সকলে মিলে কাটয়ে দিলাম ৫০ টি বছর। আগামী দিনগুলো সকল আক্ষেপ ঘুঁচিয়ে সুখে শান্তিতে বসবাস করবে এদেশের ধনী-গরিব মিলেমিশে। স্বাধীনতার জন্য জীবন উৎসর্গ করা শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে বিজয়ের সুবর্ণজয়ন্তীতে সকলকে জানাই প্রাণঢালা শুভেচ্ছা।

-নির্বাহী সম্পাদক
আজ আগামী।।

কবি নীলকন্ঠ জয়

সকল পোস্ট : নীলকন্ঠ জয়