বরেণ্য-ব্যক্তিত্ব-কৃতিত্ব

বাংলা একাডেমি পুরস্কারপ্রাপ্ত কবি বিমল গুহ

বিমল গুহ ১৯৫২ সালের ২৭ শে অক্টোবর চট্টগ্রাম জেলার সাতকানিয়া উপজেলার বাজালিয়া ইউনিয়নে জন্মগ্রহণ করেন। তার পিতা প্রসন্নকুমার গুহ এবং…

বিস্তারিত পড়ুন

মহিয়সী নারী বেগম রোকেয়া

রংপুর জেলার পায়রাবন্দ গ্রাম। ১৮৮০ সাল। নারীরা আজও জন্ম নেয় আবার তখনও জন্ম গ্রহণ করেছে। পার্থক্যটা বিশাল। আজ নারীরা ঘরের…

বিস্তারিত পড়ুন

কবি ও ছড়াকার মালেক জোমাদ্দার আর নেই!

কবি ও ছড়াকার মালেক জোমাদ্দার আর নেই! তিনি ২৮ নভেম্বর রাত দুটার দিকে ইন্তেকাল করেছেন (ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)।…

বিস্তারিত পড়ুন

বাঁক বদলের রুপকারের প্রস্থান

আগুনপাখি এবং আরও কালজয়ী গল্প, উপন্যাসের চরিত্র জনপ্রিয় কথাসাহিত্যিক হাসান আজিজুল হক বাংলা সাহিত্যের ইতিহাসে এক ধ্রুবতারা। বাংলা সাহিত্যের উজ্জ্বল…

বিস্তারিত পড়ুন

রুদ্র মুহাম্মদ শহীদুল্লাহ; একজন শব্দ শ্রমিক এর কথা// রহিম ইবনে বাহাজ

রুদ্র মুহম্মদ শহীদুল্লাহ্ বাংলাদেশের কবিতায় একাধিক বার উচ্চারিত একটি নাম। তারুণ্য যদি জীবনের গতিময়তার প্রতিক হয় আর কবিতা যদি হয়…

বিস্তারিত পড়ুন

মানুষ ও জীবন-জীবীকার শিল্পী সোহাগ পারভেজ/হামিম-উল-জিহাদ (সজল)

চিত্রকর-চিত্রশিল্পী-শিল্পী এদের মধ্যে সম্পর্কটা গ্রহ-নক্ষত্র আর গ্যালাক্সির মতো । মানুষের বিচিত্রতা ঠিক যেন সুপার ক্লাস্টার। প্রতিনিয়ত নিজের সীমানা অতিক্রম করে…

বিস্তারিত পড়ুন

বহুমাত্রিক লেখক সৈয়দ মুজতবা আলী

অলোক আচার্য ।। ‘বই কিনে কেউ দেউলিয়া হয় না’- বই নিয়ে চিরায়ত সত্য এ উপলদ্ধি করেছেন ১৯৫০-৬০ এর দশকের অন্যতম…

বিস্তারিত পড়ুন

সূর্য এর দীপ্ত মান এ টি এম শামসুজ্জামান //রহিম ইবনে বাহাজ

বাংলাদেশের চলচ্চিত্র, নাটক এবং বিনোদন ভুবনের একজন উজ্জ্বল নক্ষত্র সূর্য এর দীপ্ত শক্তি মান অভিনেতা আবু তাহের শামসুজ্জামান তাঁর সংক্ষিপ্ত…

বিস্তারিত পড়ুন

বিশ্ব মানবতার মঙ্গলে আমি আমার বাকি জীবন উৎসর্গ করব : ফেরেদৌসী কাদরী

বাংলাদেশের বিজ্ঞানী ফেরদৌসী কাদরী এশিয়ার নোবেল হিসেবে খ্যাত ম্যাগসেসে পুরস্কার পেয়েছেন। বিজ্ঞানী ফেরদৌসী কাদরী আন্তর্জাতিক উদরাময় গবেষণা কেন্দ্র বাংলাদেশের (আইসিডিডিআরবি)…

বিস্তারিত পড়ুন

কালজয়ী উপন্যাস ‘মাধুক‌রী’র স্রষ্টা বুদ্ধদেব গুহ আর নেই/ আঞ্জুমান আরা খান

বাংলা ভাষার সুপরিচিত কথাসাহিত্যিক শ্রী বুদ্ধদেব গুহ আর নেই! তিনি কোভিড-১৯ পরবর্তী জটিলতা নিয়ে কলকাতা শহরের একটি বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছিলেন। তাঁর পরিবারের সদস্যদের বরাত দিয়ে ভারতের রাষ্ট্রীয় সংবাদ সংস্থা পিটিআই বলছে, রবিবার মধ্যরাতের কিছু আগে একটি বড় ধরনের ‘কার্ডিয়াক অ্যারেস্ট’ হওয়ার পর তাঁর মৃত্যু হয়।মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৮৫বছর। তিনি দুই কন্যাসহ বহু আত্মীয়স্বজন ও শুভাকাঙ্ক্ষী রেখে গেছেন। তাঁর স্ত্রী রবীন্দ্রসঙ্গীত শিল্পী ঋতু গুহমারা যান ২০১১ সালে।

বুদ্ধদেব গুহ ‘মাধুকরী’-সহ বেশ কিছু পাঠকপ্রিয় উপন্যাসের লেখক।

১৯৩৬ সালের ২৯শে জুন কলকাতায় জন্মগ্রহণ করেন মি. গুহ। তাঁর শৈশব কেটেছে বাংলাদেশের বরিশাল ও রংপুরে।

তাঁর শৈশবের নানা অভিজ্ঞতা পরবর্তীতে তাঁর লেখালেখিতে উঠে আসে। তাঁর লেখা উপন্যাস ও ছোটগল্পগুলো ব্যাপক পাঠকপ্রিয়তা পেয়েছে।

তিনি আনন্দ পুরস্কার-সহ নানা পুরস্কারে ভূষিত হয়েছেন।

মাধুকরী ছাড়াও তার পাঠকপ্রিয় উপন্যাসের মধ্যে রয়েছে ‘কোয়েলের কাছে’ ও ‘সবিনয় নিবেদন’।

তাঁর দুটো রচনা ‘বাবা হওয়া’ এবং ‘স্বামী হওয়া’-র ভিত্তি করে তৈরি হয়েছে পুরস্কারজয়ী বাংলা চলচ্চিত্র ‘ডিকশনারি’।

শিশু সাহিত্যিক হিসেবেও তাঁর জনপ্রিয়তা ছিল – তাঁর তৈরি জনপ্রিয় কাল্পনিক চরিত্র ঋজু’দা এবং তার সহযোগী রুদ্র।

বুদ্ধদেব গুহ পেশায় ছিলেন চার্টার্ড অ্যাকাউন্টেন্ট। এছাড়া ধ্রুপদী সঙ্গীত ও ছবি আঁকায় দক্ষতা ছিল তার।
গুণী এই লেখকের মৃত্যুতে বাঙালির হৃদয়ে শোকের ছায়া নেমে এসেছে!

আজ আগামী পরিবার তাঁর আত্মার শান্তি কামনা করছি।